Advertise

পুণা চুক্তি কি এবং তার শর্তাবলী কী ছিল?

১৯৩২ খ্রীষ্টাব্দের আগস্ট মাসে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী রামসে ম্যাকডোনাল্ড যে সাম্প্রদায়িক বাটোয়ারা নীতি ঘােষণা করেন তা ভারতবাসীর মধ্যে জাতি, ধর্ম ও বর্ণগত প্রভেদকে প্রসারিত করার একটি অপকৌশল। অন্যদিকে গান্ধীজী ছিলেন জাতি, ধর্ম, বর্ণ এসবের উর্ধ্বে। তিনি আপামর ভারতবাসীর মধ্যে ঐক্য ও সংহতি বজায় রাখতে দৃঢ় সঙ্কল্প ছিলেন। আইন অমান্য আন্দোলনের ফলে গান্ধীজী এই সময় পূণার জারবেদা জেলে বন্দী ছিলেন। সাম্প্রদায়িক ভেদনীতির বিরুদ্ধে গান্ধীজী ২০শে সেপ্টেম্বর ১৯৩২ সালে আমরণ অনশন শুরু করেন। এই অনশনের ফলে গান্ধীজীর জীবন বিপন্ন হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দেয়। এই পরিস্থিতিতে হিন্দু সমাজের উচ্চবর্ণ ও নিম্নবর্ণ শ্রেণীর নেতারা পারস্পরিক আলাপ আলােচনায় বসেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ভারতের অনুন্নত সম্প্রদায়ের শীর্ষস্থানীয় নেতা ডঃ ভীমরাও রামজী আম্বেদকর সঙ্কট নিরসনে বিশিষ্ট ভূমিকা নেন।
পুণা চুক্তি ১৯৩২
ডঃ আম্বেদকর গােলটেবিল বৈঠকে যােগদান করে অনুন্নত স্বার্থ সংরক্ষণের ব্যাপারে আপােষহীন মনােভাব গ্রহণ করেন। পন্ডিত মদনমোহন মালব্যর উদ্যোগে আম্বেদকর সহ অন্যান্য নেতারা পুণায় আলোচনায় বসেন। ডাঃ আম্বেদকর গান্ধীজীর সঙ্গে দেখা করেন এবং অবশেষে মীমাংসা সূত্র গৃহীত হয়। ১৯৩২ সালে ২৪ শে সেপ্টেম্বর পুণা চুক্তি (Poona Pact) স্বাক্ষরিত হয়।

পুণা চুক্তির শর্তাবলী: পুণা চুক্তির দ্বারা স্থির হয় -
(১) হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে কোন স্বতন্ত্র নির্বাচন চালু করা হবে না। সকল হিন্দু সাধারণ নির্বাচনে অংশ নিবে। অনুন্নত শ্রেণীর জন্যে স্বতন্ত্র নির্বাচনীর দাবী ডঃ আম্বেদকর ত্যাগ করেন।
(২) ভারতের সকল প্রদেশের আইনসভায় সর্বমােট ১৪৮টি আসন অনুন্নত শ্রেণীর জন্যে সংরক্ষণ করা হবে। এই আসনে কোন বর্ণহিন্দু প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে না।
(৩) কেন্দ্রীয় আইন সভায় ১৭% আসন অনুন্নত শ্রেণীর জন্যে সংরক্ষিত থাকবে।
(৪) প্রতি সংরক্ষিত আসনে প্রার্থী মনােনয়ণের জন্যে প্রথমে শুধু অনুন্নত শ্রেণীর নির্বাচকদের ভােটে ৪ জন প্রার্থী নির্বাচিত হবে। পরে সকল শ্রেণীর হিন্দুর ভােটে এই ৪ জনের মধ্যে একজন নির্বাচিত হবে। পুণা চুক্তিকে ব্রিটিশ সরকার স্বীকৃতি দেন।
(৫) শিক্ষা অনুদানের বাইরে প্রতিটি প্রদেশে অনুন্নত শ্রেণির সদস্যদের শিক্ষাগত সুবিধা প্রদানের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ বরাদ্দ করা হবে।
(৬) স্থানীয় সংস্থায় যে কোনও নির্বাচন বা সরকারী চাকরিতে নিয়োগের বিষয়ে সে অনুন্নত শ্রেণির সদস্য হওয়ার কারণে কারও সাথে প্রতিবন্ধীকতা হবে না। পাবলিক সার্ভিসে নিয়োগের জন্য নির্ধারিত শিক্ষাগত যোগ্যতার সাপেক্ষে অনুন্নত শ্রেণীর সুষ্ঠু প্রতিনিধিত্বের জন্য প্রতিটি প্রচেষ্টা করা হবে।
(৭) অনুন্নত শ্রেণির কেন্দ্রীয় ও প্রাদেশিক আইনসভাগুলির জন্য ভোটাধিকারটি লোথিয়ান কমিটির রিপোর্টে নির্দেশিত হিসাবে দেওয়া হবে।